প্রচ্ছদ / ত্রয়ী ফরম্যাটের ফাইফার শিকারীরা

দেশের জার্সিতে ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার যেকোন বোলারের জন্যই এক তীব্র বাসনা বা স্বপ্নের জায়গা। আর এ স্বপ্নপূরণ যদি হয় ক্রিকেটের ত্রয়ী সংস্করণেই, তাহলে সে তো সোনায় সোহাগাই বটে। ক্রিকেট বিশ্বে এমন নয়জন 'সৌভাগ্যবান' ক্রিকেটার আছেন, যারা ক্রিকেটের তিনটি ফর্ম্যাটেই ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করেছেন - 

 

★ টিম সাউদি (নিউজিল্যান্ড) 

ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে ২০১১ সালে তিনি সব ফর্ম্যাটেই পাঁচ উইকেট নেওয়ার কীর্তি পূর্ণ করেন। কিউই পেস ডিপার্টমেন্টকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া এই ফাস্ট বোলারের এখন অবদি টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি টুয়েন্টিতে ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়ার কীর্তি আছে যথাক্রমে ১১, ৩ এবং ১ বার।

 

★ অজন্তা মেন্ডিস (শ্রীলঙ্কা)

অজন্তা মেন্ডিসের নাম শুনলেই মনে ভেসে ওঠে এক দুর্বোধ্য স্পিনারের ছবি, যিনি ক্যারিয়ারের শুরুতে 'ক্যারম' বলের কারিশমায় ব্যাটসম্যানদের কাছে রীতিমতো এক আতংকের নাম হয়ে উঠেছিলেন। শুরুটা স্ফুলিঙ্গের মতো প্রজ্জ্বলিত শিখায় নজরকাড়া হলেও তার ক্যারিয়ারের আলোকরশ্মি যেন আচমকাই মিলিয়ে গেছে। তবুও স্বল্প সময়ের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে তিনি তার প্রতিভার জ্বলন্ত সাক্ষর রেখে যেতে সমর্থ হয়েছিলেন। আর তাইতো বিশ্বের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ক্রিকেটের তিন ফর্ম্যাটেই পাঁচ উইকেটের মাইলফলক সহজেই ছুঁতে পেরেছিলেন। উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক টি টুয়েন্টিতে তার ৮ রানে ৬ উইকেট শিকার বহুদিন রেকর্ডবুকের পাতায় সেরা বোলিং ফিগার হিসেবে স্বমহিমায় উজ্জ্বল ছিল। 

 

★ লাসিথ মালিঙ্গা (শ্রীলঙ্কা)

'ইয়র্কার' নামক শিল্পকে অনন্য মাত্রায় যিনি নিয়ে গিয়েছেন, তিনি ঝাঁকড়া চুলের লঙ্কান কিংবদন্তি লাসিথ মালিঙ্গা। টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি টুয়েন্টিতে যিনি পাঁচ উইকেট নিয়েছেন যথাক্রমে ৩, ৮ এবং ২ বার। একমাত্র বোলার হিসেবে ওয়ানডেতে চার বলে চার উইকেট শিকারী এই পেস জাদুকরের ঝুলিতে রয়েছে প্রতিটি ফর্ম্যাটেই ১০০+ উইকেট নেওয়ার দারুণ কীর্তিগাঁথা। 

 

★ ভুবনেশ্বর কুমার (ভারত)

ওয়ানডে ক্রিকেট ক্যারিয়ারে নিজের করা ১ম বলে যে ক'জন বোলার উইকেট শিকার করেছেন, তাদের মধ্যে একজন ভুবনেশ্বর কুমার। কি দারুণ এক ইনসুইংয়ে হাফিজকে কিছু বুঝে ওঠার আগেই স্ট্যাম্প উপড়ে ফেলেছিলেন! অভিষেক টেস্টে ব্যাট হাতে ১০ নম্বরে নেমে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তার করা সর্বোচ্চ ৩৮ রানের রেকর্ড আজও অক্ষত  আছে। আন্তর্জাতিক আঙিনায় প্রথম ভারতীয় হিসেবে তিনি তিন ফর্ম্যাটেই পাঁচ উইকেট শিকারীর দূর্লভ তালিকায় নিজের নাম লেখাতে সক্ষম হন। 

 

★ উমর গুল (পাকিস্তান)

সম্প্রতি ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়া উমর গুল একসময় ছিলেন পাকিস্তান দলের অন্যতম প্রাণভোমরা। টি টুয়েন্টিতে দুই দুইবার পাঁচ উইকেট নেওয়া এই পেস সেনসেশন টি টুয়েন্টিতে মাত্র ৬ রানের বিনিময়ে ৫ উইকেট শিকার করেন, যা এখনো সেরা বোলিং ফিগারের তালিকায় স্বমহিমায় রাজ করছে। এছাড়াও সাদা পোশাকে ৪ বার এবং ওয়ানডেতে ২ বার করে 'ফাইফার' এর কীর্তি আছে সাবেক এই পাক তারকার।

 

★ ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা)

পাকিস্তানে জন্ম, বেড়ে উঠা, পাকিস্তান 'অনুর্ধ্ব ১৯', 'এ' দলে খেলার পরও জাতীয় দলের জার্সি যখন গায়ে জড়ানো হচ্ছিলনা, ঠিক তখনই প্রেমের টানে দক্ষিন আফ্রিকায় পাড়ি জমান ইমরান তাহির। পরের ঘটনা তো সবারই জানা। দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সি গায়ে লেগ স্পিনের ঘূর্ণিতে রীতিমতো রাজ করেছেন তিনি। মজার বিষয়, প্রোটিয়াদের জার্সিতে ক্যারিয়ারের প্রথম পাঁচ উইকেট শিকার করেন স্বদেশ পাকিস্তানের বিপক্ষে, টেস্টে, ২০১৩ সালে (৫/৩২)! এরপর একে একে ওয়ানডে এবং টি টুয়েন্টিতেও 'ফাইফার' এর মালিক হন তিনি। 

 

★ কুলদীপ যাদব (ভারত)

ভুবনেশ্বর কুমারের পর দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে যিনি তিন ফর্ম্যাটেই 'ফাইফার' এর মালিক বনে যান, তিনি 'চায়নাম্যান স্পিনার' কুলদীপ যাদব। এই তালিকায় তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার, যিনি একই বছরেই তিন ফর্ম্যাটে পাঁচ উইকেট শিকার করেন (২০১৮)। 

 

★ সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)

ক্রিকেটবিশ্বে 'বাংলাদেশের দূত' হিসেবে পরিচিত এই নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার একমাত্র বঙ্গসন্তান হিসেবে এই তালিকায় স্বমহিমায় ঠাঁই করে নিয়েছেন। সাকিব ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি টুয়েন্টিতে ৫ উইকেট পাওয়ার মধ্যে দিয়ে সব ফর্ম্যাটেই পাঁচ উইকেট নেওয়ার মাইলফলক স্পর্শ করেন। এখন অবদি টেস্টে ১৮ বার, ওয়ানডেতে ২ বার এবং টি টুয়েন্টিতে ১ বার 'ফাইফার' স্পর্শ করেছেন তিনি। 

 

★ রশিদ খান (আফগানিস্তান)

বর্তমানে ফ্র‍্যাঞ্চাইজি লীগগুলোর চাহিদার তুঙ্গে যতজন ক্রিকেটার 'হটকেক' হিসেবে বিরাজমান, তাদের মধ্যে রশিদ খান অন্যতম। এই আফগান যুবরাজ টি টুয়েন্টিতে মাত্র ৩ রানে ৫ উইকেট শিকার করেন, যা সেরা বোলিং ফিগার হিসেবে এই সংস্করণে বিশ্বরেকর্ড! ২০১৭ সালে ওয়ানডে এবং টি টুয়েন্টিতে পাঁচ উইকেট শিকার পূর্ণ হয়ে গেলেও সাদা পোশাকে প্রথম পাঁচ উইকেট শিকারের জন্য তাকে অপেক্ষা করতে হয়ে আরও দুই বছর। কারণ, তখনও যে আফগানিস্তানের 'টেস্ট স্ট্যাটাস' পাওয়া হয়ে উঠেনি! মজার বিষয়, এ তালিকায় তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার, যিনি তিন ফর্ম্যাটেই একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে 'ফাইফার' এর রেকর্ড গড়েন। প্রতিপক্ষের নাম শুনতে খুব ইচ্ছে করছে, তাইনা? তাহলে শুনুন, সেই প্রতিপক্ষের নাম আয়ারল্যান্ড, যাদের বিপক্ষে রশিদ খান তার ক্যারিয়ারের সিংহভাগ উইকেট শিকার করেছেন।

  • ট্যাগস

এ বিভাগের আরও নিউজ

সর্বাধিক আইপিএল মাতানো ভিনদেশী পঞ্চপাণ্ডব

মঙ্গলবার, ০৬ এপ্রিল ২০২১, সকাল ১১:৩৮

হাম্মদ আশিক সৈকতঃ আইপিএলকে বলা হয় বিশ্বের সবথেকে জনপ্রিয় ফ্রাঞ্চাইজি ট্যুর্নামেন্ট। জনপ্রিয় হবেই বা না কেন? বিশ্বের বাঘা বাঘা ক্রিকেটাররা মুখিয়ে থাকেন আইপিএলে ম্যাচ খেলার জন্য। এতে

তাসকিন এবং বাংলাদেশ ক্রিকেটের আক্ষেপ

শনিবার, ০৩ এপ্রিল ২০২১, দুপুর ১:০৬

আরিফুল হক বিজয়ঃ বাংলাদেশের ক্রিকেটে গতির ঝড়টা শুরু হয়েছিলো গোলাম নওশের প্রিন্সকে দিয়ে। এরপর ধুমকেতুর মতো আগমন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার। দুরন্ত গতিতে বিরতিহীন ছুটতে গিয়ে লাইনচ্যুত হয়ে

রকিবুল হাসান এবং একটি 'জয় বাংলা' ব্যাটের গল্প

মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ ২০২১, সকাল ১০:০৯

মুহাম্মদ আশিক সৈকতঃ ১৯৭১ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি। রুম নম্বর ৭০৭, হোটেল পূর্বাণী। ওপেনার রকিবুল হাসান বসে বসে ভাবছেন আগামীকালের ম্যাচে সুযোগ পাবেন কিনা। উল্লেখ্য, ঢাকায় সেসময় খেলতে এসেছ

পাকিস্তানের দক্ষিন আফ্রিকা সফর, ২০২১

দক্ষিন আফ্রিকা  পাকিস্তান

১৪ এপ্রিল ২০২১, সন্ধ্যা ৬:৩০

আইপিএল, ২০২১

সানরাইজার্স হাইদ্রাবাদ  ব্যাঙ্গালুরো

১৪ এপ্রিল ২০২১, রাত ৮টা

আইপিএল, ২০২১

রাজস্থান রয়েলস  দিল্লী ক্যাপিটালস

১৫ এপ্রিল ২০২১, রাত ৮টা

পাকিস্তানের দক্ষিন আফ্রিকা সফর, ২০২১

দক্ষিন আফ্রিকা  পাকিস্তান

১৬ এপ্রিল ২০২১, সন্ধ্যা ৬:৩০

আইপিএল, ২০২১

পাঞ্জাব কিংস  চেন্নাই সুপার কিংস

১৬ এপ্রিল ২০২১, রাত ৮টা

আইপিএল, ২০২১

দিল্লী ক্যাপিটালস উইকেটে জয়ী

২য় ম্যাচ, মুম্বাই

পাকিস্তানের দক্ষিন আফ্রিকা সফর, ২০২১

পাকিস্তান উইকেটে জয়ী

১ম টি-টুয়েন্টি, জোহানসবার্গ

আইপিএল, ২০২১

ব্যাঙ্গালুরো উইকেটে জয়ী

১ম ম্যাচ, চেন্নাই

পাকিস্তানের দক্ষিন আফ্রিকা সফর, ২০২১

পাকিস্তান ২৮ রানে জয়ী

৩য় ওয়ানডে, সেঞ্চুরিয়ান

পাকিস্তানের দক্ষিন আফ্রিকা সফর, ২০২১

দক্ষিন আফ্রিকা ১৭ রানে জয়ী

২য় ওয়ানডে, জোহানসবার্গ

আইপিএল, ২০২১

৯ এপ্রিল ২০২১ -  ৩০ মে ২০২১

পাকিস্তানের দক্ষিন আফ্রিকা সফর, ২০২১

২ এপ্রিল ২০২১ -  ১৬ এপ্রিল ২০২১